১৪ জুন ২০২৪

ইসরায়েলে হিজবুল্লাহর ড্রোন হামলা

ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর গ্যালিলি ফরমেশেনের সদর দফতরে ব্যাপক ড্রোন হামলা চালিয়েছে লেবাননের সশস্ত্র গোষ্ঠী হিজবুল্লাহ। এসব হামলায় কেউ হতাহত হয়েছেন কি না তা জানা যায়নি। তবে হামলার পর উত্তর ইসরায়েলের অনেক স্থানে আগুন জ্বলতে দেখা গেছে।

গত অক্টোবর থেকেই ইসরায়েলে হিজবুল্লাহ ড্রোন হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। তবে এই প্রথমবারের মতো ইরান-সমর্থিত গ্রুপটি এক স্কোয়াড্রোন ড্রোন হামলার কথা ঘোষণা করল।

হামলার সময় বেশ কয়েকবার উত্তর ইসরায়েলে বিমান হামলার সাইরেন বেজে ওঠে। সেখানকার অধিবাসীদের দ্রুত আশ্রয় নিতে বলা হয়।

ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী জানায়, তারা লেবানন থেকে বিস্ফোরক বোঝাই একটি ড্রোনকে ভূপাতিত করেছে। এছাড়া উত্তর ইসরায়েলে আরও অন্তত দুটি ড্রোন ভূপাতিত করেছে তারা।

হামলার পর উত্তর ইসরায়েলের বিভিন্ন স্থানে আগুন ধরে যায়। আগুন নেভাতে দমকল বাহিনীর অন্তত ৩০টি ইউনিট কাজ করছে।

ইসরায়েলি দমকল বিভাগের এক বিবৃতিতে জানায়, তারা আগুনে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমাতে কঠোর পরিশ্রম করছে।

গত বছরের ৭ অক্টোবর থেকে গাজায় হামলা চালাচ্ছে ইসরায়েল। নির্বিচার হামলায় প্রায় সাড়ে ৩৬ হাজার ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন, যাদের বেশিরভাগ নারী ও শিশু। আহত হয়েছেন প্রায় ৮৩ হাজার ফিলিস্তিনি।

গাজায় ফিলিস্তিনিদের হত্যা ও ইসরায়েলের বোমাবর্ষণ বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত ইসরায়েলের বিরুদ্ধে হামলা অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছে হিজবুল্লাহ।

ইসরায়েল ও হিজবুল্লাহর মধ্যে ক্রমবর্ধমান লড়াইয়ের কারণে কয়েক মাস আগে লেবানন সীমান্তের কাছাকাছি শহরে বসবাসকারী অনেক ইসরায়েলিকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল।

আরও পড়ুন