২০ মে ২০২৪

কমল-আশেকের হ্যাটট্রিক, দ্বিতীয়বার সংসদের পথে শাহীন; চমক দেখালেন ইবরাহিম

কক্সবাজারের চারটি সংসদীয় আসনের তিনটিতে নৌকা ও অপরটিতে কল্যাণের হাতঘড়ি জয় পেয়েছে। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শেষে বেসরকারি ফলাফলে তারা জয় পেয়েছেন। এতে এবারসহ টানা তিনবার জয় পেয়ে হ্যাটট্রিক জয় নিশ্চিত করেন কক্সবাজার-২ ও ৩ আসনে আশেক উল্লাহ রফিক এবং সাইমুম সরোয়ার কমল। আর টানা দ্বিতীয় বার সংসদে যাবার সুযোগ পেয়েছেন কক্সবাজার-৪ আসনের বর্তমান এমপি শাহীন আকতার বদি।

কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে জয় পেয়ে চমক দেখিয়েছে কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম। আওয়ামী লীগের সহযোগিতায় ভোটে তার কাছে হেরে গেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী সংসদ সদস্য জাফর আলম।

জেলা রিটানিং কর্মকর্তার কার্যালয়ের তথ্য মতে, নানা উত্তাপ ছড়ালেও কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই শেষ হয়েছে চকরিয়া -পেকুয়া আসনের নির্বাচন। তবে পৃথক পৃথক অভিযোগের কারনে চরনদীপ ভূমিহীন প্রাইমারি স্কুল, দক্ষিণ ফুলছুড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মরংগুনা অসুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোট গ্রহন স্থগিত রয়েছে। এই তিন কেন্দ্রের ফলাফল ছাড়াই এই আসনে কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান হাতঘড়ি প্রতিক নিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম ৮১ হাজার ৯৫৫ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্ধী স্বতন্ত্র প্রার্থী জাফর আলম ট্রাক প্রতীকে পেয়েছেন ৫২ হাজার ৮৯৬ ভোট।

যদিও ভোট শেষ হওয়ার ৫০ মিনিট আগে নির্বাচন বর্জনের ঘোষনা দেন সংসদ সদস্য ও এ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী জাফর আলম।

কক্সবাজার-২ (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) আসনে নিজের হ্যাটট্রিক জয় পেয়েছেন সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক। ২০১৪ ও ২০১৮ এর ধারাবাহিকতা বজায় রেখে তৃতীয়বারের মত আওয়ামী লীগের প্রার্থী আশেক উল্লাহ ৯৭ হাজার ৪৭৬ ভোট পেয়ে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। মহেশখালি ও কুতুবদিয়া উপজেলাতে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই ভোট গ্রহন শেষ হয়। এতে ৩৯ দশমিক ৪ শতাংশ ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। রাতেই বেসরকারীভাবে ফলাফলে নৌকা প্রতীকে আশেক উল্লাহ রফিক ৬২ হাজার ৯৮০ ভোট বেশী পেয়ে জয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নোঙ্গর প্রতীকের (বিএনএম)র মুহাম্মদ শরীফ বাদশা পেয়েছে ৩৪ হাজার ৪৯৬ ভোট।

আশেকের মতো হ্যাটট্টিক জয় পেয়েছেন কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু-ঈদগাঁও) আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরোয়ার কমল। পর পর তিনবার আওয়ামী লীগের নৌকা নিয়ে জয় পান তিনি। জেলা সদর আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত (নৌকা) সাইমুম সরওয়ার কমলের প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী (ঈগল) ব্যারিস্টার মিজান সাঈদ। তবে অনিয়মের অভিযোগ এনে তিনি নির্বাচন বর্জন করেন। এআসনে ১৭৬টি কেন্দ্রে নৌকার পেয়েছে এক লাখ ৬৭ হাজার ২৯ এবং ঈগল পেয়েছে ২১ হাজার ৯৪৬ ভোট। তিন উপজেলায় ভোটার রয়েছে ৪ লাখ ৮৯ হসজার ৬১০ জন।আনুষ্ঠানিক বিজয়ী ঘোষণা হলে কক্সবাজার-৩ আসন থেকে টানা তিন মেয়াদের সংসদ সদস্য হয়ে হ্যাটট্রিক করবেন কমল। এর আগে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থীর কাছে হারলেও দশম, একাদশ ও দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে টানা তিনবার জয় ছিনিয়ে নিয়েছেন তিনি।

আর প্রথমবারের মতো স্বামী বদির ম্যাজিকে দ্বিতীয়বার সংসদ আসন দখল করেছেন কক্সবাজার-৪(টেকনাফ-উখিয়া) আসনের সংসদ সদস্য শাহীন আকতার বদি। সাবেক সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদির ম্যাজিকে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও এক লাখ ২২ হাজার ৮০ ভোট পেয়ে দ্বিতীয়বারের মত বেসরকারী ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন নৌকার প্রার্থী শাহীন আক্তার। রবিবার (৭ জানুয়ারি) রাতে উখিয়া-টেকনাফ উপজেলার স্ব-স্ব সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। নৌকা প্রতীকের শাহীন আক্তার ৯০ হাজার ৩৭৩ ভোট বেশী পেয়ে বেসরকারী ভাবে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. নুরুল বশর পেয়েছেন ৩১ হাজার ৭০৭ ভোট।

তবে, ভোট চলাকালীন দুপুরে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ তুলে লাঙ্গল প্রতীকের নুরুল আমিন সিকদার ভুট্টো এবং ২টার দিকে স্বতন্ত্রপ্রার্থী ঈগল প্রতীকের নুরুল বশর ভোট বর্জন করেন।

আরও পড়ুন

এ সম্পর্কিত আরও

সর্বশেষ