১৫ জুলাই ২০২৪

তিন উৎসব ঘিরে ফুলের রমরমা বাণিজ্য

শীতের রুক্ষতা কাটিয়ে প্রকৃতিতে ঋতুরাজ বসন্ত আসতে যে আর খুব বেশি দেরি নেই তা গত কয়েকদিন ধরে আন্দাজ করা যাচ্ছিল। চট্টগ্রাম নগরীর চেরাগী পাহাড় মোড়ের দোকানে দোকানে সজ্জ্বিত নানা জাতের ফুল বসন্তের আগমণকে যেন আরও জোরালোভাবে জানান দিচ্ছে।

মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বসন্তের ঠিক একদিন আগে সান ফ্লাওয়ার হাউস, রেড রোজ, অপরাজিতা পুষ্প বিতানের মতো ফুলের দোকানগুলো সেজেছিল হরেক রকমের ফুলে; যা নজর কাড়ছে সকলের।

নগরীর ব্যস্ততম মোমিন রোড়ের চেরাগী অংশে রাস্তার দু’পাশের ফুলের দোকানগুলোতে শোভা পাচ্ছে হরেক রকমের ফুল। গ্লাডিওলাস, ডালিয়া, গাঁদা, জারবেরা, জিপসি, বেলি, জবা, গোলাপসহ বিভিন্ন ফুলের ডালা সাজিয়ে বসে আছেন দোকানিরা। সেসব দোকানে আবার বসন্তপ্রেমীদের উপচে পড়া ভিড়। দরদাম করে নিজের পছন্দ মতো ফুল কিনতে ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা।

বসন্ত-ভ্যালেন্টাইন-সরস্বতী পূজা উপলক্ষে নগরীর চেরাগী পাহাড় মোড় ছাড়াও ফুলের মেলা বসেছে পুরো শহরজুড়ে। নগরীর বহদ্দারহাট, মুরাদপুর, জিইসি মোড়, আগ্রাবাদ, আন্দরকিল্লা, নিউমার্কেটসহ সব স্থানে দেখা গেছে ফুলের মেলা। সকাল থেকে তরুণ-তরুণীসহ বিভিন্ন বয়সী মানুষ সাজগোজ করে ভিড় জমাচ্ছেন ফুল কিনতে। কেউবা প্রিয়জনের জন্য ফুল কিনছেন, কেউবা কিনছেন নিজের জন্য, কেউবা পরিবার আবার কেউ কিনছেন পূজার জন্য। সাধারণ ক্রেতার পাশাপাশি বিভিন্ন জায়গা থেকে ব্যবসায়ীরাও আসছেন এই ফুল মার্কেটে ফুল কিনতে। সব মিলেয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন বিক্রেতারা। প্রায় কারোরই বসে থাকার ফুসরত নেই।

তিন উৎসব ঘিরে ফুলের ব্যাপক চাহিদা থাকায় ফুল বিক্রেতারা ভালো মুনাফা করলেও কিছুটা বেরাজ ক্রেতারা। তবে বসন্ত এবং ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে বেশি দাম দিয়ে ফুল কেনার বিষয়টি মেনে নিচ্ছেন অনেকেই।

বেশ কয়েকটি ফুলের দোকন ঘুরে দেখা যায়, গ্লাডিওলাস প্রতিটি ৩০-৩৫ টাকা, বিভিন্ন রঙের গোলাপ ১০০টি ৬০০ টাকা, রজনীগন্ধা প্রতিটি ২৫-৩০ টাকা, জারবেরা ২০-২৫ টাকা, চন্দ্রমল্লিকা ৫০০ টাকা, জিপসি এক আঁটি ৫০-৬০ টাকা, জিপসি এক আঁটি ১০০ টাকা, গাঁদা ফুল প্রতি হাজার ৪০০-৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া বিভিন্ন জাতের রঙিন ফুল দিয়ে তৈরি একটি ফ্লাওয়ার বাস্কেট ৩০০ টাকা, বিভিন্ন ফুলের মিশ্রণে সেলোফিন দিয়ে মোড়ানো একটি বুকেট ১৫০ থেকে ২০০ টাকা।

আরও পড়ুন