২৬ মে ২০২৪

হতদরিদ্র কিশোরের মাথা ফাটিয়ে ভ্যান ছিনতাই

বাংলাধারা ডেস্ক »

সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা উপজেলায় এক দরিদ্র কিশোর ভ্যানচালকের মাথা ফাটিয়ে তার শেষ সম্বল ভ্যানটি নিয়ে গেছে যাত্রীবেশী ছিনতাইকারীরা।  

ধানদিয়া এলাকায় শুক্রবার এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন পাটকেলঘাটা থানার ওসি রেজাউল হোসেন।

আহত কিশোর (১৪) যশোরের কেশবপুর উপজেলার মঙ্গলকোট গ্রামের এক দুরিদ্র ভ্যানচালকের ছেলে। খুলনা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসা দিয়ে শনিবার রাতে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে ওসি রেজাউল বলেন, প্রতিদিনের মতো শুক্রবার সকালে ওই কিশোর তাদের ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান নিয়ে বেরিয়েছিল। দুপুরে কয়েকজন যুবক শাহীনের ভ্যানটি ভাড়া নেয়। ছেলেটি তাদের নিয়ে পাটকেলঘাটার ধানদিয়ার দিকে রওনা হয়। ধানদিয়া গ্রামের মাঠে ঢুকে একটি পাটক্ষেতের পাশে ওই যাত্রীবেশী দুর্বৃত্তরা তার মাথা ফাটিয়ে রক্তাক্ত ও জখম করে ভ্যানটি নিয়ে যায়।

ওসি বলেন, এরপর সে ঘটনাস্থলে অজ্ঞান হয়ে পড়েছিল। জ্ঞান ফিরে পাওয়ার পর কান্না শুরু করলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে পাটকেলঘাটা থানায় খবর দেয়। এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে শনিবার তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

রাত ১১টার দিকে তাকে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করানো হয় বলে ঢাকা মেডিকেল জানিয়েছেনপুলিশ ফাঁড়ির এসআই বাচ্চু।

এই কিশোরের বাড়ি যশোরের কেশবপুর উপজেলার মঙ্গলকোট ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য জহির রায়হান বলেন, ঘটনাটি অমানবিক। যারা এ ঘটনায় জড়িত তারা মানুষরূপী পশু। নাহলে একটি শিশুর মাথা ফাটিয়ে ভ্যান ছিনতাই করতে পারত না।

তিনি এ ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান।

জহির রায়হান আরও জানান, মঙ্গলকোট গ্রামে তাদের বসতভিটা ছাড়া কিছু নেই। সম্প্রতি একটি এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে তার বাবা একটি ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান কেনেন। বাবা ও ছেলে দুই বেলায় ভ্যান চালিয়ে সংসারের খরচ জোগাড় করছিলেন।

বাংলাধারা/এফএস/এমআর

আরও পড়ুন