২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

নরওয়ে-বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক বিনিময় ‘লেট দ্য লাইট ইন’

চিরকুট দ্য গ্লোবাল বাংলাদেশি ব্যান্ড এবং নরওয়ের বিশিষ্ট গায়ক-গীতিকার এবং জলবায়ু কর্মী মার্তে উলফ সম্প্রতি তাদের নতুন গান লেট দ্য লাইট ইন জনসম্মুখে উপস্থিত করেছেন।

চিরকুটের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান গায়িকা শারমিন সুলতানা সুমি গত বছর নরওয়ের অ্যাগডার ইউনিভার্সিটিতে একটি আন্তর্জাতিক সংগীত সম্মেলনে মূল বক্তা হিসেবে যোগদানের সময় এই গান লেখা ও রেকর্ডিং শুরু হয়।

নরওয়েতে সুমি ২১ বছরের সংগীত যাত্রার পাশাপাশি বিনোদন জগতে একজন নারী হিসেবে তার অভিজ্ঞতা তুলে ধরেছেন।

ঢাকার নরওয়ে দূতাবাস জানায়, বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) ঢাকাস্থ নরওয়েজিয়ান দূতাবাস নরওয়ে-বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক বিনিময় ও নতুন গান লেট দ্য লাইট ইন চিরকুটের এক লাইভ পারফরম্যান্সের মাধ্যমে উদযাপন করেছে। বাংলাদেশে নিযুক্ত নরওয়ের রাষ্ট্রদূত এসপেন রিক্টার-স্ভেনসন, কূটনীতিক, থিঙ্ক-ট্যাঙ্ক, ব্যবসায়ী সম্প্রদায় এবং উন্নয়ন অংশীদারদের প্রতিনিধিরা এই সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উদযাপনে অংশ নেন।

নরওয়ে এবং জনপ্রিয় বাংলাদেশি রক ব্যান্ড চিরকুট মিউজিক্যাল পার্টনারশিপ, সাংস্কৃতিক বিনিময় এবং বন্ধুত্বের ইতিহাস দীর্ঘ। ২০১১ সালে রিক্সকনসার্টিন (ন্যাশনাল ট্রাভেলিং কনসার্ট) এবং লাইভ স্কয়ার কনসার্ট, বাংলাদেশের মাধ্যমে নরওয়ের সঙ্গে চিরকুটের সহযোগিতা শুরু হয়। এটি রক ব্যান্ডের জন্য একটি নতুন সূচনা ছিল এবং এরপর থেকে চিরকুটকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। নরওয়েজিয়ান দূতাবাস এই সহযোগিতার মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে সাংস্কৃতিক সম্পর্ক জোরদার করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

বাংলাদেশে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাওয়ার পাশাপাশি, চিরকুট বিশ্বের বেশ কয়েকটি বৃহত্তম সংগীত উৎসবে পারফর্ম করেছে, ম্যাডিসন স্কয়ার গার্ডেনের মতো বিখ্যাত স্থানে কনসার্টের আয়োজন করেছে এবং অনেক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক শিল্পীর সঙ্গে সহযোগিতা করে বিশ্বব্যাপী তাদের গান ছড়িয়ে দিয়েছে।

গভীর ভাবপূর্ণ এবং চেতনায় পূর্ণ মৌলিক গানের মাধ্যমে, চিরকুট তরুণ এবং জলবায়ুর জন্য কাজ করছে। সম্প্রতি তারা নদী রকস তৈরি করেছে বাংলাদেশের প্রতিটি নদীর জন্য একটি করে গান রচনা করে নদীর প্রতি ভালোবাসা এবং তরুণদের মধ্যে জলবায়ু ঝুঁকি সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করাই এই গানগুলোর মূল লক্ষ্য ।

সুমি আর মার্তে-র নতুন গান লেট দ্য লাইট ইন জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ঝুঁকি এবং বিশ্বব্যাপী শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যেই সৃষ্টি হয়েছে।

আরও পড়ুন