১৩ জুলাই ২০২৪

নাফনদে মাছ ধরতে গিয়ে রোহিঙ্গা বাবা-ছেলে নিখোঁজ, ছেলের মরদেহ উদ্ধার

কালুরঘাটে টেম্পুচাপায় প্রাণ গেল কলেজছাত্রীর বাকঁখালী

কক্সবাজারের টেকনাফের নাফনদীতে মাছ ধরতে গিয়ে বাবা-ছেলে দুইজনেই নিখোঁজ হন।নিখোঁজের একদিন পর ছেলের মরদেহ নাফনদী থেকে উদ্ধার করে নৌ-পুলিশ।

বুধবার (৩ জুলাই) দুপুরের দিকে নাফনদীর দমদমিয়া অংশে ভাসমান অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয় বলে নিশ্চিত করেন টেকনাফ নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ পরিদর্শক তপন কুমার বিশ্বাস।

ভিকটিমের পরিবারের বরাত দিয়ে তপন কুমার বিশ্বাস জানান, মঙ্গলবার (২ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্প-২৭ জাদিমুড়া বি/৭ ব্লকে বসবাসরত নুর উল্লাহ (৪৭) ও তার ছেলে রুহুল আমিন(১৮) নামের দুইজন রোহিঙ্গা নাফ নদীতে মাছ ধরতে যায়। সেখানে চলমান ভারী বর্ষণের কবলে পড়ে নাফ নদীতে ডুবে বাবা ছেলে নিখোঁজ হন।

পরবর্তীতে বুধবার (৩ জুলাই) দুপুর ১২ টার দিকে হ্নীলা ইউনিয়নের দমদমিয়া জাহাজ ঘাট এলাকায় নিখোঁজ রুহুল আমিনের মরদেহ ভাসমান অবস্থায় পাওয়া গেলেও তার পিতা নুর উল্লাহ’র খোঁজ এখনো মিলেনি।

মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি থানা পুলিশকে জানালো হলে, টেকনাফ থানা পুলিশের একটি টিম রুহুল আমিনের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

আরও পড়ুন