২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

পদ্মা সেতুতে বসলো ১৪ তম স্পেন, ২ কিলোমিটারের বেশি দৃশ্যমান

বাংলাধারা ডেস্ক »

পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে ১৫ ও ১৬ নম্বর পিলারের ওপর বসল সেতুর ১৪ তম স্প্যান (সুপার স্ট্রাকচার)। শনিবার ( ২৯ জুন ) বিকেল সোয়া ৪টার দিকে এ স্প্যানটি বসানো হয়েছে। এর আগে প্রথমে বৃহস্পতিবার এবং পরে শুক্রবার স্প্যানটি বসানোর কথা ছিল। পিলারের কাছে পলি জমার কারণে তা সম্ভব হয়নি। এই ১৪তম স্প্যানটি পিলারের ওপর বসানোর ফলে সেতুর ২১০০ মিটার দৃশ্যমান। পদ্মা সেতুর সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রকৌশলী বলেন, বৃহস্পতিবার ধূসর রঙের ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যর ৩ হাজার ১৪০ টন ওজনের স্প্যানটিকে মাওয়া কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে বহন করে নিয়ে যায় তিন হাজার ৬০০ টন ধারণ ক্ষমতার ‘তিয়ান ই’ ক্রেন। স্প্যানবহনকারী ক্রেনটি রওনা দিয়ে ১৫ নম্বর খুঁটির কাছে নোঙর করে রাখা হয়। কিন্তু প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে নির্ধারিত সময়ে স্প্যানটি রওনা দিতে বিলম্ব হয়। এছাড়া ১৫-১৬ নম্বর পিলারের কাছে পলি জমে থাকার কারণে ড্রেজিং করে পলি অপসারণ শেষে ১৪তম স্প্যানটি বসানো হয়।

পুরো সেতুতে ২ হাজার ৯৩১টি রোডওয়ে স্ল্যাব বসানো হবে। আর রেলওয়ে স্ল্যাব বসানো হবে ২ হাজার ৯৫৯টি। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ৪২টি খুঁটির মধ্যে এ পর্যন্ত ২৯টি খুঁটি সম্পন্ন হয়েছে। ২৯৪টি পাইলের মধ্যে ২৯০টি পাইল স্থাপন হয়ে গেছে। ৪১টি স্প্যানের এ পর্যন্ত ১৪টি স্প্যান বসেছে। তাই দৃশ্যমান ২১০০ মিটার।

মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি) ও নদী শাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো। উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিয়ারে প্রথম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো দৃশ্যমান হয় পদ্মা সেতু।

২২ মার্চ পদ্মা সেতুর ৩৫ ও ৩৪ নম্বর পিয়ারের ওপর নবম স্প্যানটি বসানো হয়। ওই দিন ১ হাজার ৩৫০ মিটারের সেতু দৃশ্যমান হয়। ১০ এপ্রিল মাওয়া প্রান্তে ১৩ ও ১৪ নম্বর পিয়ারের ওপর ১০ম স্প্যানটি বসানোর মধ্য দিয়ে সেতু ১ হাজার ৫০০ মিটার দৈর্ঘ্যে রূপ নেয়। ২৩ এপ্রিল পদ্মা সেতুর জাজিরা প্রান্তে ৩৩ ও ৩৪ নম্বর পিয়ারের ওপর বসানো হয় ১১তম স্প্যান। সব শেষ ৬ মে মুন্সিগঞ্জের মাওয়া ও শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তের মাঝামাঝি স্থানে ২০ ও ২১ নম্বর পিয়ারের পর আরেকটি স্প্যান বসানো হয়। ফলে, পদ্মা সেতুর ১ হাজার ৮০০ মিটার দৃশ্যমান হয়।

বাংলাধারা/এফএস/এমআর/এসবি

আরও পড়ুন