১৪ জুন ২০২৪

প্রবাসীর স্বর্ণ ছিনতাই: বরখাস্ত এসআই ও সহযোগীর একদিনের রিমান্ড

সৌদি ফেরত আবদুল খালেক নামে এক প্রবাসীর কাছ থেকে ১৬ ভরি স্বর্ণ ছিনতাইয়ের মামলায় গ্রেপ্তার বরখাস্ত হওয়া পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আমিনুল ইসলাম ও তার সহযোগী শহীদুল ইসলাম জাহেদের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

সোমবার (২০মে) বিকেলে চট্টগ্রামের মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের কাজী শরীফুল ইসলামের আদালত এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমাণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলো, আমিনুল ইসলাম, যিনি নগরের খুলশী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কর্মরত ছিলেন। তার সহযোগী নগরের বাকলিয়া থানার রাহাত্তার পুলের কেবি আমান আলী সড়কের বাসিন্দা শহীদুল ইসলাম জাহেদ।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার (প্রশিকিউশন) মো. মফিজ উদ্দীন বলেন, প্রবাসী আবদুল খালেক থেকে ১৬ ভরি র্স্বণ ছিনতাইয়ের মামলায় গ্রেপ্তার বরখাস্তকৃত এসআই আমিনুল ইসলাম ও তার সহযোগী শহীদুল ইসলাম জাহেদের ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। আদালত শুনানি শেষে একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, সৌদিপ্রবাসী আবদুল খালেক চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ফিরছিলেন। তাঁকে বহনকারী গাড়ি নগরের খুলশী থানার টাইগারপাস এলাকায় পৌঁছালে তার গতি রোধ করেন এসআই আমিনুল ইসলাম। দুই সহযোগীকে নিয়ে তিনি প্রবাসী আবদুল খালেকের কাছ থেকে ১৬ ভরি স্বর্ণ ছিনিয়ে নেন। এরপর ওই গাড়িসহ প্রবাসীকে নিয়ে নগরের কয়েকটি জায়গায় ঘোরেন। একপর্যায়ে রোববার (১৯ মে) বিকেল তিনটার দিকে আখতারুজ্জামান চৌধুরী উড়ালসড়কে নিয়ে প্রবাসীকে গাড়ি থেকে নামিয়ে দিতে চেষ্টা করেন এসআই আমিনুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা। গাড়ি থেকে নামিয়ে দেওয়ার সময় প্রবাসী আবদুল খালেক পুলিশ কর্মকর্তার কাপড় ধরে রাখেন। কিছুক্ষণ ধস্তাধস্তি হয়। এরই মধ্যে সেখানে লোকজন ভিড় জমান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে এসআই আমিনুল ইসলাম ও তার সহযোগী শহীদুলকে গ্রেপ্তার করে। দ্বিতীয় সহযোগী পালিয়ে যান। এ ঘটনায় প্রবাসী আবদুল খালেক বাদী হয়ে নগরের খুলশী থানায় মামলা করেন।

আরও পড়ুন