২০ মে ২০২৪

প্রবাসী মনছুর হত্যায় অংশ নেয় ৪ ভাড়াটে খুনি, হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ‘দা’ উদ্ধার

লোহাগাড়া প্রতিনিধি »

লোহাগাড়ার পুটিবিলায় প্রবাসী মনছুর আলী (২৭) প্রকাশ লেদু হত্যাকাণ্ডে জড়িত সাবের আহমেদ (৪৭) নামে আরও এক আসামিকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৪ মার্চ) রাত ৯ টার সময় পুটিবিলার পহর চান্দা এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক ছাবের আহমদ ওই এলাকার ইন্না আমিনের পুত্র।

লোহাগাড়া থানার উপ-পরিদর্শক ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (এস আই) শরিফুল ইসলাম পিপিএম বাংলাধাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, গ্রেফতারকৃত আসামি ছাবের আহমদের দেখানো মতে ঘটনাস্থল সংলগ্ন একটি জায়গা থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি ধারালো দা উদ্ধার করা হয়েছে।

গ্রেফতার হত্যাকাণ্ডে জড়িত সাবের আহমেদ

এর আগে, নিহত মনছুর আলীর স্ত্রী রিনা আক্তার (২৩), শাশুড়ি ছায়েরা খাতুন (৪৭) ও শ্যালিকা রুমন্নান আক্তারকে (১৬) পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে। জিজ্ঞাসাবাদে হত্যাকাণ্ডে স্ত্রী রিনা আক্তারের সংশ্লিষ্টতা না পাওয়ায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এদিকে, বুধবার (১৫ মার্চ) দুপুরে গ্রেফতারকৃত অন্যান্য আসামিরা চট্টগ্রাম চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দাঁড় করানো হয়। এ সময় নিহত মনছুর আলীর শাশুড়ি ছায়েরা খাতুন হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি জবানবন্দি দিয়েছেন। পরে তিনিসহ অন্যান্যদের কারাগারে প্রেরণ করেন আদালত।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (এসআই) শরিফুল ইসলাম পিপিএম বাংলাধাকে আরও বলেন, প্রবাসী মনছুর আলীর শাশুড়ি ছায়েরা খাতুন এক লাখ টাকার বিনিময়ে ভাড়াটি খুনীদের সাথে চুক্তি করেন। হত্যার মূল কারণ, শ্যালিকা রুমন্নান আক্তারের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক ও পারিবারিক বিরোধ। হত্যাকাণ্ডে সরাসরি অংশ নেন চারজন। বাকি তিনজনেন পরিচয় তদন্তের স্বার্থে বলা যাচ্ছে না।

তিনি আরও জানান, হত্যার পর প্রবাসী মনছুর আলীকে পহরচান্দা ছোট ধলিবিলা হাসনা ভিটার পাহাড়ি এলাকায় মাটিচাপা দিয়ে পালিয়ে যায় খুনীরা। এদের মধ্যে আটক ছাবের আহমেদ পেশাদার খুনি। বাকি পলাতক আসামিদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

আরও পড়ুন : লোহাগাড়ায় প্রবাসীর লাশ উদ্ধারের ঘটনায় স্ত্রী, শাশুড়ি ও শালিকা আটক

আরও পড়ুন

এ সম্পর্কিত আরও

সর্বশেষ