২০ জুন ২০২৪

বন্দর কর্মকর্তা সারওয়ারুল সাময়িক বরখাস্ত

বাংলাধারা প্রতিবেদন »

বিভিন্ন অনিয়মের দায়ে চট্টগ্রাম বন্দরের পাঁনগাও টার্মিনালের ব্যবস্থাপক গোলাম মো. সারওয়ারুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। গত সোমবার (২৭মে) বন্দরের এক দপ্তরাদেশে এই বরখাস্ত করা হয়।

পদ খালি থাকা পাঁনগাও টার্মিনাল ম্যানেজারের অতিরিক্ত দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে কমলাপুর কনটেইনার ডিপোর ডেপুটি ট্রাফিক ম্যানেজার আহমেদুল করিম চৌধুরীকে। তিনি গতকাল মঙ্গলবার সেখানে অতিরিক্ত দায়িত্ব নেন।

সাময়িক বরখাস্তের পর এই কর্মকর্তাকে এখন প্রতিদিন বন্দরের পরিচালক (পরিবহন) এর কার্যালয়ে নিয়মিত হাজিরা দিতে হবে। তবে প্রচলিত বিধি মোতাবেক তিনি খোরাকি ভাতা পাবেন।

বন্দরের আদেশে বলা হয়, চট্টগ্রাম বন্দর দেশের একটি বৃহৎ ও গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা। সংস্থার নিয়ম ভঙ্গ করে পত্রিকায় প্রতিবাদলিপি প্রকাশ করা এবং অন্যান্য কার্যক্রমের মাধ্যমে বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রতিষ্ঠিত নিয়মগুলোর ব্যতয় ঘটনোর বিষয়ে তার সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাওয়ায় বন্দর কর্মচারী প্রবিধানমালার ১৯৯১ এর বিধানমতে এই আদেশ জারি করা হয়েছে।

বন্দর সূত্র জানায়, বন্দরের টার্মিনাল ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব পালন করার সময় গোলাম মো. সারওয়ারুল ইসলামের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ ওঠে। টার্মিনাল ভবনে কনটেইনারের স্পেশাল পারমিশনের নামে মাসে অর্ধকোটি টাকার বাণিজ্যের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এ ঘটনার পর গোলাম সারওয়ারুল ইসলাম বিপুল পরিমাণ টাকা খরচ করে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে এসব অভিযোগের জবাব দেন। এটি বন্দরের প্রবিধানমালার লঙ্ঘন।

আবার এনবিআরের সার্ভারে ঢুকে যেসব কনটেইনার খালাস হয়েছে সেগুলো ২২২টি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে খালাসের জন্য স্পেশাল পারমিশন দেন এই কর্মকর্তা। এ নিয়ে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের কর্মকর্তারাও ব্যাখ্যা চায় বন্দরের কাছে। জাতীয় ও সামাজিক নিরাপত্তাঝুঁকির তথ্য থাকার পরও এমন পণ্য খালাসে অগ্রাধিকার নিয়ে সন্দেহ তৈরি হয়। বন্দরের পরিবহন বিভাগের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন সংস্থায় উড়োচিঠি দিয়ে বন্দরে বিশৃঙ্খলা তৈরি করেন এই কর্মকর্তা।

বন্দর সূত্র জানায়, অভিযোগ ওঠার পর প্রথমে তাকে বন্দরের টার্মিনাল ব্যবস্থাপকের মতো গুরুত্বপূর্ণ পদ থেকে সরিয়ে পানগাঁও টার্মিনালে বদলি করে দেওয়া হয়। সেখানেও তিনি বিভিন্ন কর্মকর্তার নামে সরকারি বিভিন্ন সংস্থায় চিঠি দিয়ে কর্মকর্তাদের মধ্যে অসন্তোষ তৈরির চেষ্টা চালান।

বাংলাধারা/এফএস/এমআর

আরও পড়ুন