২০ মে ২০২৪

ব্যাটারি রিকশায় বিদ্যুৎতের সর্বনাশ

ফেরদৌস শিপন »

দেশে বিদ্যুৎ সংকটে জনদুর্ভোগ বাড়ছে। লোডশেডিংয়ে যোগ হচ্ছে নতুন মাত্রা। অথচ সেই কাঙ্খিত বিদ্যুৎ চুরি করে গিলে খাচ্ছে নিষিদ্ধ ইজিবাইক বা অটোরিকশা। বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে নিষিদ্ধ এসব ইজিবাইক বা অটোরিকশা এখনিই বন্ধ করা উচিত বলে মনে করছেন সাধারণ মানুষ। সাধারণ মানুষের মতে, যেখানে বিদ্যুতের ঘাটতি সৃষ্টি হয়েছে সেখানে এই যানগুলোতে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ ব্যবহার বিদ্যুতের অপচয় ছাড়া আর কিছুই করছে না। বিদ্যুৎ বিভাগের উচিত স্পেশাল টাস্কফোর্সের মাধ্যমে এসব বিদ্যুৎ চুরি বন্ধ করা।

আমরা জানি, সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নতুন করে ইজিবাইক আমদানি বন্ধ ও পুরনোগুলো পর্যায়ক্রমে তুলে নেওয়ার কথা। কিন্তু আমরা দেখছি, সরকারের সেই সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়নি গত কয়েক বছরেও। আমরা আরো দেখছি, মহাসড়কগুলোতে এই যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও তা মানা হচ্ছে না। স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা, নামধারী সাংবাদিক, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড, জেলা ট্রাফিক বিভাগ ও হাই ওয়ে পুলিশকে নিয়মিত মাসোহারা দিয়েই রাস্তায় চলছে অটোরিকশা। ৮০ শতাংশ গ্যারেজেই নিষিদ্ধ এসব অটো বাইকের ব্যাটারি চার্জ করতে ব্যবহার করা হচ্ছে অবৈধ বিদ্যুৎ লাইন। অনেক স্থানে চলছে মিটার টেম্পারিং এর মতো ঘটনা।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, সাধারণত একটি ইজিবাইকের জন্য চার থেকে পাঁচটি ১২ ভোল্টের ব্যাটারি প্রয়োজন। আর প্রতি সেট ব্যাটারি চার্জের জন্য গড়ে ৯০০ থেকে ১১০০ ওয়াট হিসেবে পাঁচ থেকে ছয় ইউনিট (দিনে বা রাতে কমপক্ষে ৫ থেকে ৬ ঘণ্টা) বিদ্যুৎ খরচ হয়। গ্যারেজে চুরি করে লুকিয়ে বিদ্যুৎ ব্যবহার করার অভিযোগ রয়েছে প্রচুর। এসব ব্যাটারি রিচার্জ করায় সরকার বিদ্যুতের রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

বিদ্যুৎ সংকট মোকাবিলায় দেশজুড়ে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের জন্য এলাকাভিত্তিক লোডশেডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। রিকশার কাঠামোতে ব্যাটারির সাহায্যে মোটর যুক্ত করে তৈরি করা হয় ব্যাটারিচালিত রিকশা। শুধু রিকশা নয়, ভ্যানের সঙ্গেও যুক্ত করা হয় ব্যাটারি। এসব ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান দাপিয়ে বেড়াচ্ছে দেশের সড়ক-মহাসড়ক ও অলিগলি। সারা দেশে অবৈধ থ্রি হুইলার ইজিবাইক চিহ্নিত ও অপসারণ করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। তবে এই নির্দেশ কেউই মানছে না।

আমরা জানি, ইজিবাইক বা অটোরিকশার ব্যাটারি চার্জ করতে প্রচুর পরিমান বিদ্যুৎ খরচ হয়। যেখানে বিদ্যুতের অভাবে মানুষ অতিষ্ট, বিদ্যুতের চাহিদা মেটাতে ঘন ঘন বিদ্যুতের দাম বাড়াতে হচ্ছে, এমনকি কুইক রেন্টালের মতো আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত নিতে হচ্ছে, সেখানে যদি দেশে রিক্সা ও অটোরিক্সা গুলো ব্যাটারিতে চালিত হতে থাকে, তাহলে ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হবে বলে মনে করছি।

লেখক : সম্পাদক, বাংলাধারা

আরও পড়ুন

এ সম্পর্কিত আরও

সর্বশেষ