২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

মাহমুদুল্লাহ’র চোট গুরুতর নয়, খেলা নিয়েও শঙ্কা নেই

বাংলাধারা প্রতিবেদন »

মাহমুদুল্লাহর চোট ছিল কাঁধে, সেই কাঁধের ব্যথার কারণে বিশ্বকাপে একটা ওভারও করতে পারেননি তিনি। করতে পারছেন কেবল ব্যাটিংটাই। কাঁধের চোটের সঙ্গে আফগানিস্তান ম্যাচে যোগ হলো এবার পায়ের পেশীতে টান।

ক্র্যাচে ভর দিয়ে হোটেল থেকে বের হলেন মাহমুদুল্লাহ। সামনে তার স্ত্রী জান্নাতুল কাউসার মিষ্টি ছোট্ট একটি লাগেজ হাতে বার্মিংহামের উদ্দেশে রওনা হতে বাসে উঠতে এগোচ্ছিলেন। মাহমুদুল্লাহকে এভাবে দেখা যে আঁতকে ওঠার মতোই। অনেক প্রশ্নই তখন মনে উঁকি দেয় মাহমুদুল্লাহ খেলতে পারবেন কি পারবেন না।

জানা গেছে, মাহমুদুল্লাহর ডান পায়ের কাফ মাসলের পেশি ছিঁড়ে একটু ক্ষতের সৃষ্টি করলেও ভয়ের কিছু নেই; বরং মিডল অর্ডার এ ব্যাটসম্যান পরের ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে খেলার জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন।

মাহমুদুল্লাহ বলেন, ম্যাচটা আমি খেলতে চাই। চোট নিয়েও খেলতে কোনো সমস্যা হবে না। তবে মঙ্গলবার সাউদাম্পটনে বাংলাদেশের যে এক-দু’জন সাংবাদিক ক্র্যাচে ভর দেওয়া মাহমুদুল্লাহকে দেখার পর বুদ্ধি করে মোবাইলে একটা ছবি তুলে ফেললেন, বাংলাদেশের মিডিয়া ও টাইগার সমর্থকদের কাছে থেকে ধন্যবাদ পেতেই পারেন তারা। কিন্তু এ ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ায় টাইগার সমর্থকদের মধ্যে ক্র্যাচে ভর দিয়ে হাঁটা মাহমুদুল্লাহকে নিয়ে যে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা দেখা দেয়, বাস্তবে ভয় পাওয়ার মতো তেমন কিছু হয়নি তার।

টিম ম্যানেজমেন্টের নির্ভরযোগ্য এক কর্মকর্তার কাছ থেকে জানা গেছে, চোটাক্রান্ত পেশিকে চাপমুক্ত রাখতেই ফিজিও থিলান চন্দ্রমোহনের পরামর্শে ক্র্যাচে ভর দিয়ে হাঁটছেন মাহমুদুল্লাহ। পরের ম্যাচে তাকে খেলার মতো ফিট করে তুলতেই এই ব্যবস্থাপত্র দেওয়া। মাহমুদুল্লাহর আত্মবিশ্বাস দেখে জাতীয় দলের প্রায় সবারই বিশ্বাস, চোট পরিচর্যা করে ভারতের বিপক্ষে ঠিকই খেলতে নামবেন এ ব্যাটসম্যান।

উল্লেখ্য, সোমবার সাউদাম্পটনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ের সময় মাহমুদুল্লাহর পেশিতে চোট লাগে। ওই অবস্থাতেই মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে ৫৬ রানের জুটিতে সঙ্গ দেন, যেখানে তার অবদান ২৭ রান। অবশ্য ফিল্ডিংয়ের সময় মাঠে ছিলেন না তিনি। সাব্বির রহমান বদলি ফিল্ডারের দায়িত্ব পালন করেন। এ সময় চোটের গভীরতা জানার জন্য আক্রান্ত কাফ মাসলের স্ক্যান করানো হলে তাতে গ্রেড ওয়ান টিআর ধরা পড়ে। এ ধরনের চোট সারতে কম করে হলেও ১৫ দিন লেগে যায়। মাহমুদুল্লাহ সেখানে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগে চোট পরিচর্যা করতে সাত দিন সময় পাচ্ছেন।

এই সময় পরের ম্যাচের ভেন্যু বার্মিংহামে দলের সঙ্গে থাকবেন তিনি। ফিজিও থিলান চন্দ্রমোহন তাকে নিয়ে প্রতিদিনই কাজ করবেন বলে জানায় টিম ম্যানেজমেন্ট। মাশরাফি বিন মুর্তজাও এ কারণে ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানের খেলার ব্যাপারে আশাবাদী, ‘ফিজিও তাকে নিয়ে কাজ করবেন। এক সপ্তাহ সময় হাতে পাব, আশা করি সে ঠিক হয়ে যাবে।

বাংলাধারা/এফএস/এমআর/টিএম/বি

আরও পড়ুন