২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

রিফাতের শরীরে আটটি কোপ, মৃ্ত্যু অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে

বাংলাধারা ডেস্ক »

বরগুনা সদরে প্রকাশ্যে হত্যার শিকার রিফাত শরিফের শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন ছিল। তবে মূলত অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ময়নাতদন্তকারী দলের প্রধান জামিল হোসেন।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) দুপুরে রিফাতের মৃতদেহ ময়নাতদন্ত শেষে বরিশাল শের- ই বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. জামিল হোসেন সাংবাদিকদের এতথ্য জানান।

তিনি বলেন, নিহত রিফাত শরীফের গলায়, মাথায়, বুকে ও হাতে ৮টি ধারালো অস্ত্রের কোপ ছিল। এগুলোর মধ্যে বুক, মাথা ও গলার আঘাত ছিল গুরুতর। তিনি আরও বলেন, গলার আঘাতের কারণে শরীরের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি রগ কেটে যাওয়ায় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়েছে। রক্তক্ষরণের তীব্রতা এতই বেশি ছিল যা রিফাতকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে।

এর আগে নিহত রিফাতের ময়নাতদন্তের জন্য বেলা ১১ টার দিকে সহকারী অধ্যাপক ডা. জামিল হোসেনকে প্রধান করে ৩ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অপর দুই সদস্য হলেন ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের প্রভাষক ডা. মাইদুল হোসেন ও ডা. সোহেলী আক্তার তন্বী। বেলা ১১ টা থেকে ১২টা পর্যন্ত চলে ময়নাতদন্ত কার্যক্রম। ময়নাতদন্ত শেষে রিফাতের মরদেহ নিয়ে বেলা ১ টায় স্বজনরা সড়ক পথে বরগুনার উদ্দেশ্যে রওনা হন।

উল্লেখ্য, বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে রাম দা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে রিফাত শরীফকে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওইদিন বিকেলে মারা যান রিফাত।

বাংলাধারা/এফএস/এমআর/টিএম/বি

আরও পড়ুন