১৩ জুলাই ২০২৪

সেন্টমার্টিন থেকে দু’ট্রলারে শাহপরীরদ্বীপে এসে নামলেন ৯০যাত্রী

স্বাভাবিক সার্ভিস বোট বন্ধ থাকার পক্ষকালের মাথায় সাগরের উত্তালতার মাঝেই সেন্টমার্টিন থেকে দু’টি ট্রলারে শাহপরীর দ্বীপে পৌঁছালেন ৯০জন যাত্রী। বৃহস্পতিবার (২০ জুন) বিকালে ট্রলার দুটি টেকনাফের শাহপরীরদ্বীপ জেটিঘাটে পৌঁছে বলে জানিয়েছেন সাবরাং ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার আব্দুস সালাম।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার বিকালে সেন্টমার্টিন দ্বীপ থেকে দুটি সার্ভিস ট্রলার করে ৯০ জন যাত্রী শাহপরীর দ্বীপ জেটিঘাটে নিরাপদে পৌঁছেছেন। পরে তারা নিজ নিজ গন্তব্য চলে যান।
সেন্টমার্টিন স্পিডবোট মালিক সমিতির লাইনম্যান জাহাঙ্গীর আলম জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরের পরে সেন্টমার্টিন জেটিঘাট থেকে দু’টি সার্ভিস ট্রলারে ৯০ জন যাত্রী টেকনাফের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। বিকেলে তার শাহপরীর দ্বীপ জেটিঘাটে নিরাপদে পৌঁছেছে। একটি ট্রলারে ৪৬ জন আরেক ট্রলারে ছিল ৪৪ জন যাত্রী উঠেন। যাত্রীদের মাঝে ৪০ জন বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী। সঙ্গে রোগীও ছিল।

সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান বলেন, মিয়ানমারে চলমান সংঘাতের জেরে চলতি মাসের শুরু হতে সেন্টমার্টিন-টেকনাফ নৌ-পথে চলাচল করা একাধিক বোটে মিয়ানমারের উপকূল হতে গুলি চালানো হয়েছে। এরপর দ্বীপের নিয়মতি সার্ভিস বোট চলাচল বন্ধ হয়ে দ্বীপে নিত্যপণ্য সংকট দেখা দেয়। কোরবানির আগে জাহাজে করে খাবার ও নিত্যপণ্য পৌছায় জেলা প্রশাসন। কোরবানির পর বৃহস্পতিবার আবার সার্ভিস বোটে যাতায়াত শুরু হয়েছে। শুনেছি, দুপুরে ছেড়ে যাওয়া বোট দুটি বিকেলে নিরাপদে শাহপরীরদ্বীপ জেটিতে ভিড়েছে। আমরা চায় অনিশ্চয়তা কাটিয়ে দ্বীপের মানুষের জীবন ও চলাচল স্বাভাবিক হউক।

উল্লেখ্য, মিয়ানমারের মংডুসহ কয়েকটি গ্রামে সেদেশের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন আরাকান আর্মির সঙ্গে দেশটির সেনাবাহিনীর তুমুল সংঘর্ষ চলছে। ৫ জুন সেন্টমার্টিনে ভোটগ্রহণ শেষে টেকনাফ ফেরার পথে নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের বহন করা ট্রলারে মিয়ানমারের উপকূল হতে গুলি চালানো হয়। এরপর ৮ ও ১১ জুন মিয়ানমার সীমান্ত থেকে সেন্টমার্টিন ও টেকনাফগামী বাংলাদেশি ট্রলার ও স্পিডবোটে লক্ষ্য করে গুলি বর্ষণ করা হয়েছিল। তখন হতে স্বাভাবিক যান চলাচল বন্ধ। কিন্ত বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) অনেক ঝুঁকি নিয়ে ৪টি ট্রলার করে প্রায় ২৭০জন মতো লোক আসে টেকনাফ। তখন বঙ্গোপসাগরে বড় বড় ঢেউয়ে অনেক ঝুঁকি ছিল এবং ট্রলারের অনেকে বমি করেছে। টেকনাফ ঘাটে এসে হয়রানীরও স্বীকার হয় মানুষ। এরপর দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর ২০ জুন আবারো সার্ভিস বোট এসেছে।

এদিকে, টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং থেকে শাহপরীরদ্বীপ পর্যন্ত ৫৪ কিলোমিটার নাফনদীতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের সদস্যরা দিনরাত নাফনদী ও সীমান্ত সড়কে টহল বৃদ্ধি করেছে। যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলা প্রস্তুত বিজিবি ও কোস্টগার্ড এমনটি জানিয়েছেন টেকনাফ ২ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মহিউদ্দীন আহমেদ। রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ রোধ এবং সার্বিক বিষয়ে সীমান্তে টহল জোরদারের পাশাপাশি সতর্ক অবস্থানে রয়েছে বিজিবি।

আরও পড়ুন