১৪ জুন ২০২৪

রাঙামাটিতে সকালের আবেদনে বিকেলে মিলবে জমাবন্দি: জেলা প্রশাসক

পাহাড়ের নাগরিকদের ভূমি সংক্রান্ত সরকারী সেবা সহজে প্রাপ্তিতে রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে নানামুখী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে মন্তব্য করে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোশারফ হোসেন খান বলেছেন রাঙামাটির দূর্গম যেকোনো উপজেলা বা ইউনিয়নের বাসিন্দারা তাদের জমি সংক্রান্ত যেকোনো সমস্যার প্রতিকার চেয়ে অনলাইনের মাধ্যমে সকালে আবেদন করলে বিকেলেই মিলবে প্রতিকার।

বৃহস্পতিবার (৬ই জুন) দুপুরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আসন্ন ৮ই জুন থেকে ১২ই জুন রাঙামাটিতে ভূমি সপ্তাহ পালনকে কেন্দ্র করে রাঙামাটির জেলা প্রশাসক এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের অন্যতম ক্ষেত্র হলো স্মার্ট পদ্ধতিতে ভূমি সংক্রান্ত সকল সেবা জনগণের দোর গোড়ায় পৌঁছে দেওয়া। তারই ধারাবাহিকতায় ‘স্মার্ট ভূমিসেবা, স্মার্ট নাগরিক’ স্লোগানকে সামনে রেখে বাংলাদেশ সরকার আগামী ০৮-১২ জুন ২০২৪ তারিখ হতে সপ্তাহব্যাপী দেশজুড়ে ভূমি সেবা সপ্তাহ -২০২৪ উদযাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তারই অংশ হিসেবে রাঙামাটি পার্বত্য জেলায় আগামী ০৮ জুন ২০২৪ হতে ১২ জুন ২০২৪ পযন্ত ভূমি সেবা সপ্তাহ উদযাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক জানান, ভূমি সপ্তাহকে কেন্দ্র করে রাঙামাটির জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে অত্রাঞ্চলের বাসিন্দাদের ভূমি সংক্রান্ত নানাবিদ জটিলতা নিরসনে ভুমি সেবা সহজীকরণে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন কর্তৃক সম্প্রতি বেশ কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। সেগুলো হলো : (১) দ্রুততম সময়ে জমাবন্দির নকল সরবরাহ, সকালের আবেদন বিকেলে এবং বিকেলের আবেদন পরবর্তী কর্মদিবসে নিষ্পত্তি করা হচ্ছে (ছেঁড়া, ঘষামাজা ইত্যাদি ব্যতীত) (২) ছেঁড়া, ঘষামাজা ইত্যাদি রকমের জমাবন্দির নকল প্রদানের স্বার্থে সহকারীকমিশনার ভূমি এবং হেডম্যান অফিসের সহায়তা নিয়ে নকল প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে (৩) নামজারি এবং বন্ধকীর আবেদনে ব্যাংকের ঋণমুক্ত সনদের প্রত্যয়ন বাদ দেয়া হয়েছে (৪) নামজারির আবেদন দ্রুত নিষ্পত্তি করতে প্রত্যেকটি ধাপে সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। (৫) নামজারি আবেদনের ক্ষেত্রে আবেদনকারীর নিকট সত্যায়িত কাগজপত্র না চেয়ে শুনানির সময় কানুনগো কর্তৃক মূল কাগজপত্র পরীক্ষা করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। (৬) বন্ধকীর আবেদনে কাগজপত্রে গেজেটেড কর্মকর্তার সত্যায়ন না চেয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যাংক ম্যানেজার কর্তৃক সত্যায়িত করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এর ফলে সত্যায়িত করার কাজটি সহজ হবে এবং যাচাই কার্যক্রম নিশ্চিত হবে। (৭) নামজারি ও বন্ধকীর আবেদনে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সুনির্দিষ্ট করে ভূমি অফিসসমূহে টাঙিয়ে দেয়া হয়েছে। (৮) নামজারির আবেদন সহজ করতে আবেদন ফরম তৈরী করা হয়েছে। এ ফরমটি জেলা প্রশাসন রাঙ্গামাটি এর ওয়েবসাইটে দৃশ্যমান আছে, যে কেউ এখান থেকে ডাউনলোড করে আবেদন করতে পারবেন। (৯) নামজারি এবং বন্ধকীর আবেদনের ক্ষেত্রে মালিকানা সংক্রান্ত প্রতারণা এড়ানোর স্বার্থে ০৬ মাসের মধ্যে সরবরাহকৃত জমাবন্দির নকল দাখিল বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ভূমি সপ্তাহ চলাকালীন সময়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় প্রাঙ্গনে স্থাপিত বুথে রাঙামাটিবাসীকে তাৎক্ষণিক ভূমি সেবা প্রদানের জন্য ভূমি সেবা বুথ স্থাপন করা হবে। উক্ত বুথ হতে (১) ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ (২)নামজারির আবেদন গ্রহণ (৩) বন্ধকীর আবেদন গ্রহণ ও অনুমতি পত্র প্রদান (৪) জমাবন্দির আবেদন গ্রহণ ও সরবরাহকরণ (৫) নোটিং কপি প্রদান (৬)অনুমোদনকৃত নামজারি মামলার নিবন্ধন সম্পন্নকরণ (৭) অনুমোদনকৃত নামজারি মামলার নোটিং সম্পাদন (৮) সেবা গ্রহীতাদের সেবা সম্পর্কিত বিভিন্ন প্রশ্নের সরাসরি উত্তর প্রদান সেবা নিশ্চিত করা হবে।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, রাঙামাটির অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্টেট জোবাইদা আক্তার, সহকারী ম্যাজিষ্টেট নেলী রুদ্র, প্রেসক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেলসহ রাঙামাটির সর্বস্তরের গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন