spot_imgspot_img
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার নিবন্ধিত। রেজি নং-৯২
রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩
প্রচ্ছদকক্সবাজার৫ কেজি আইস ও ৫ লাখ ইয়াবা ফেলে পাচারকারী চম্পট

৫ কেজি আইস ও ৫ লাখ ইয়াবা ফেলে পাচারকারী চম্পট

কক্সবাজার প্রতিনিধি
spot_img

কক্সবাজারের টেকনাফের নাফ নদীর তীরে পাচারকারিদের ফেলে যাওয়া নৌকা থেকে ৫ কেজি ২৬৮ গ্রাম ক্রিস্টাল মেথ (আইস) ও ৫ লাখ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। এসময় কোন পাচারকারীকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

মঙ্গলবার(১৫ আগস্ট) দিনগত রাত ১১ টার দিকে এ অভিযান চালানো হয় বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার বিজিবি ব্যাটালিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার (ভারপ্রাপ্ত) কর্নেল মো. জিল্লাল হোসেন।

বুধবার (১৬ আগস্ট) বিকেলে বিজিবি-২ টেকনাফ ব্যাটালিয়নের সম্মেলন কক্ষে প্রেস ব্রিফিংয়ে রিজিয়ন কমান্ডার (ভারপ্রাপ্ত) কর্নেল মো. জিল্লাল হোসেন বলেন, মিয়ানমার থেকে মাদক আসার গোপন সংবাদ পেয়ে টেকনাফ ব্যাটালিয়নের কয়েকটি টহলদল নাফনদীতে কৌশলগত অবস্থান নেয়। এক পর্যায়ে মিয়ানমার থেকে আসা একটি নৌকাকে চ্যালেঞ্জ করলে নৌকায় অবস্থানরত চোরাকারবারীরা বিজিবি’র টহলদলের উপস্থিতি টের পেয়ে নাফনদীতে লাফিয়ে সাঁতরে শূন্য লাইন অতিক্রম করে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে পালিয়ে যায়।

এসময় চোরাকারবারীদের ফেলে যাওয়া নৌকাটি তল্লাশী করে ৬টি প্লাষ্টিকের ব্যাগে মোড়ানো প্যাকেট উদ্ধার করে টহলদল। পরে প্যাকেটের ভিতর থেকে ৫ কেজি ২৬৮ গ্রাম ক্রিস্টাল মেথ আইস এবং ৫ লাখ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট মালিকবিহীন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। চোরাকারবারীদের আটকের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

রিজিয়ন কমান্ডার (ভারপ্রাপ্ত) কর্নেল মো. জিল্লাল হোসেন আরও বলেন, সীমান্ত সুরক্ষা, মাদক পাচার ও চোরাচালান রোধে সীমান্তে অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে বিজিবি কাজ করে আসছে।

বিপুল পরিমাণ মাদকের চালান আটকের সময় আসামী না থাকার প্রশ্নে তিনি বলেন, বিজিবির অবস্থান টের পেলে পাচারকারী দল সু-কৌশলে শূণ্য লাইন অতিক্রম করে মিয়ানমার অভ্যন্তরে চলে যাওয়ার ফলে আটক করা সম্ভব হয় না।

টেকনাফ সাইডে চলে আসা মাদক পাচারকারিরা এতবড় নাফনদী সাঁতরে কিভাবে শূণ্যরেখা অতিক্রম করে? এমন প্রশ্ন এড়িয়ে গিয়ে রিজিয়ন কমান্ডার বলেন, মিয়ানমারের সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে যৌথ অভিযানের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে এবং মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করে যথাযথ ও কার্যকরীভাবে পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে বিজিবি।

প্রেস ব্রিফিংয়ে রামু সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল মো. মেহেদী হোসাইন কবীর ও টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. মহিউদ্দিন আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন

spot_img

সর্বশেষ